দুমকি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদে দেখতে চাই

দুমকি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মোঃ নজরুল ইসলাম আকন কে দেখতে চায় উপজেলাবাসী। মোঃ নজরুল ইসলাম দুমকি উপজেলার যুব লীগের সদস্য, সাংগঠনিক সম্পাদক বাংলাদেশ আওয়ামী সেচ্ছাসেবকলীগ, সহ-সভাপতি সেচ্ছাসেবকলীগ দুমকি উপজেলা, এবং তিনি পেশায় একজন ব্যবসায়ী । তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক ধর্মপ্রতিমন্ত্রী পটুয়াখালী-১ আসনের এম.পি অ্যাডভোকেট শাহজাহান মিয়া ও দুমকি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট হারুন অর রশিদ হাওলাদার’র অত্যন্ত আস্তাভাজন ও স্নেহধন্য এবং স্থানীয় জনতার কাছে ব্যাপক জনপ্রিয় রাজনৈতিক ব্যক্তি মোঃ নজরুল ইসলাম আকন। দীর্ঘদিন থেকে কাজ করে যাচ্ছেন আওয়ামীলীগের জন্য। পরিবারের এবং আত্নীয়স্বজন সবাই আওয়ামীলীগের বিভিন্ন পদে থাকলেও কখনো কোন দলীয় পদের জন্য তিনি তদবির করেননি।
উপজেলার যে কোন আওয়ামীলীগের সভা সমাবেশে সর্ব প্রথম যে লোকটির দেখা মেলে তিনি হলেন মোঃ নজরুল ইসলাম। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় ঘোষিত অথবা পটুয়াখালী জেলা কর্তৃক ঘোষিত প্রায় সকল কর্মসুচীতে তিনি এগিয়ে আসেন এবং তার কর্মকান্ড সবার চোখে পড়ার মত। তিনি তার সমর্থিত লোকজনকে নিয়ে প্রায় প্রতিটি মিছিল-মিটিং এ অংশগ্রহন করেন। মোঃ নজরুল ইসলাম ব্যবসার পাশাপশি রাজনীতিতে খুবই একজন সক্রিয় মানুষ। তিনি দুমকির প্রত্যক মিছিল মিটিং এবং প্রায় কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করার ফলে জেলার উর্দ্ধতন নেতৃবৃন্দের চোখেও একজন আস্থাভাজন।
ব্যাক্তি জীবনে তিনি অত্যান্ত নম্্র ভদ্র, সদা হাস্যোজ্বল ও সাদা মনের মানুষ। তার মাঝে কোন প্রকার অহংকার নেই। নিরঅহংকারী এই মানুষটি দল মত নির্বিশেষে আজ সকলের কাছে প্রিয় ব্যাক্তি। সেই আস্থার প্রতিদান ও দিচ্ছেন তিনি। কাজ করে যাচ্ছেন দলের জন্য এবং খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষের জন্য এবং কাজ করেছেন নৌকার জন্য ও সর্বপরি সাধারণ মানুষের কল্যানের জন্য। তিনি সামর্থ্য অনুযায়ী তার উপজেলায় প্রায় প্রতিটি লোকজনের সমস্যায় এবং বিভিন্ন ধরনের উন্নয়নমুলক কর্মকান্ডে এগিয়ে আসেন। উপজেলার বিভিন্ন নেতাকর্মীরা বলেন, তার সাথে উপজেলার সবার সাথে ভাল সম্পর্ক রয়েছে। তিনি উপজেলার একজন প্রিয় লোক। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হলে সংগঠন এবং উপজেলার উন্নয়নের গতি আরো বৃদ্ধি হবে বলে আমরা মনে করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *