সোমবার, ০৬ এপ্রিল ২০২০, ০৫:২২ অপরাহ্ন

কি লিখেছেন কবি বিলাস দাস বিস্তারিত..

একটি কবিতা

যে হৃদয়ন্তে বিভীষিকার মলাটে-মধ্য নিশায় বিশ্বাস হয় বিতরিত
সে নীড়ে ভালবাসার প্রত্যয়ে-মনের প্রত্যাবর্তন হয় কি অবিরত?
আজ তুমি যা কিছু দেখছো ছল;
তা প্রসিদ্ধ প্রয়ন রুপে-অঙ্কুরে শোভিত ছিল একদিন অবিচল
তবে কেন প্রষ্ফুটিতায়নে অবিশ্বাসের অনলে হয় অঙ্গার
অবান্তর,অগন্য প্রশ্ন জরতায় দিবা-নিশি করে সংহার।

এই কবিতা তুমিই বলনা?
তোমাকে হৃদয়ে পুষে পাপ করেছি
আমি তো শুধু‘ই তোমাকে প্রাঁণবন্ত করতে-
কত নৈপূন্যতার রঙে সেজেছি।
জোয়া-ভাটা,সুখো-জরা,রঙ্গীন-সৌখিন আর সৃষ্টির লিপ্ততায়
নানা রুপে আর্বিভুত হয়েছি জেগে ওঠা ওই বনলতায়।
মিশিয়ে দিতে আমার সত্বাকে দিয়েছি ফাঁকি
সেই দোষে ধূষর বর্নে পরিপূর্ন হলো আমার-পুলকিত-প্রখর দুটি আঁখি।

কতরাত, কত প্রহর,শত ভাবনায়-তুমি ছিলে মোর একক সঙ্গী
সে ক্ষনে ছিল কি বিন্দু পাপ-ছিল কি ইন্দ্রিয় লালসার অভিসন্ধি?
শুধু ব্যাথা-বেদনায় মগ্ন হয়ে তোমায় আপন ভেবেছি
সে ভাবনায় আজ আমি নিঃস্ব;বিচার,বাজারে বদনাম এটেছি।

এই কবিতা তুমি‘ই বলনা ?
তুমি শুধু‘ই কাল্পনিক,নাকি আত্মিক;শত বর্ষেও তুমি রবে কি অধরা
সদা তোমার তাৎপর্য্যে সিক্ত হয়ে-অর্ধমৃত হৃদয়কে করি চঞ্চলা।
তবুও-প্রতিরাত তোমার‘ই ভাষা-আমায় র্নিঘূম করে,করে হতাহত।
এ যাতনার বিষে তোমার নিয়ে বিকাশিত বিশ্বাস হয় র্নিগত

যাকে সংস্কৃত্য রথে ধরে অনাদি পথে দিলাম পাড়ি
আজ তার‘ই র্নিমমতা,প্রশ্নঘাতে আমি ফেরারী
কত,শত সংকল্প-অন্তিমকালেও হবেনা এ দুটি প্রাঁণের গতিরোধ
তবে কেন মধ্যলগ্নে অকাল ঝড়ে নিভে যেতে চায়-মিতালির প্রমোদ।
সে কি বোঝেনা-আমি একা,একাকিত্ব;
বিকানোর মত কিছুই নাই আমার বাগানে-যা ছিল রীতির ধারায় বন্ধি
র্জীন দেহে কোন নবআত্মা হবে আমার সঙ্গী।
তবুও বিবেক ঘুম ভাঙ্গিয়ে বলে
আমি কপট,কুটিল,ছল; প্রতারনার এক অভয়রান্য,
মনে জাগে ভয়-তাঁর অভিশাপে এ জীবন
রেখায় নিয়তির প্রয়াস রবে কি অগন্য?

এ আখ্যাতি মানা যায়-তুমি‘ই বল কবিতা?
তোমার সম্মোহনে কালক্ষনে স্বজ্জিত আমি-নির্দশন প্রকৃতির এক রণঞ্জয়ি রচয়িতা
শুধু একবার বলে দাও তাঁরে-তুমি যে আমার-ই চিরস্তন একটি কবিতা।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2019 payra24.com
Design & Developed BY payra24.com