বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০, ০৯:২২ পূর্বাহ্ন

সবজির দাম চড়া বাজারে

ডেস্ক: কয়েক দিন ধরে ঢাকায় হালকা শীত অনুভূত হচ্ছে। এরই মধ্যে বাজারে উঠতে শুরু করেছে নানা ধরনের শীতের সবজি। বাজার ভর্তি শীতের সবজি থাকলেও দাম কিন্তু যথেষ্ট চড়া।

রাজধানীর রামপুরা, মালিবাগ, সেগুনবাগিচা, হাতিরপুল, ফার্মগেট, কারওয়ান বাজারসহ বেশ কয়েকটি কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে, দোকানগুলো শীতের সবজিতে ভরা। শিম, নতুন আলু, পেঁয়াজ পাতা, টমেটো, মুলা, ফুলকপি, বাঁধাকপি, নতুন বেগুনসহ নানা রকমের সবজি পাওয়া যাচ্ছে। তবে নতুন সবজি বাজারে আসা মানে বাড়তি দাম গুনতে হবে, এটা যেন নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ফার্মগেটের তেজগাঁও কলেজের সামনে নিয়মিতই সবজি বিক্রি করেন মো. সুমন। সবজিগুলো দেখেই মনে হলো বেশ সতেজ। নতুন আলুর কেজি কত জিজ্ঞাসা করতেই দাম চাইলেন ১২০ টাকা। এক ক্রেতা পাশ থেকে শুনে অন্য দোকানের দিকে হাঁটা দিল।

এত বেশি দাম কেন জানতে চাইলে সুমন বলেন, ‘নতুন আইছে আলু, সাপ্লাই বেশি নাই। কয়েক দিন গেলেই কইম্যা যাইবো।’

পাইকারি বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দেশে চাষ হওয়া নতুন আলু তোলার এখনো সময় হয়নি। তবে ভারত থেকে কিছু আলু আমদানি হচ্ছে। এগুলোই বাজারে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। পুরনো আলু এখনো ২৫-৩০ টাকা দামেই বিক্রি হতে দেখা গেছে।

মাস দুয়েক ধরেই ভারত থেকে আমদানি করা পাকা টমেটো বিক্রি হচ্ছিল চড়া দামে। এখনো এই টমেটো প্রতি কেজি ৭০-৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে দেশি টমেটোও বাজারে আসতে শুরু করেছে। এসব টমেটোর দাম আরো চড়া। ১০০-১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে। দাম কিছুটা কমলেও এখনো চড়া দামেই বিক্রি হচ্ছে শিম। প্রতি কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ৪০-৬০ টাকা কেজি দরে। সপ্তাহখানেক ধরে বাজারে আসতে শুরু করেছে পাতা পেঁয়াজ। প্রতি কেজি পাতা পেঁয়াজ পাইকারিতে ৩০-৪০ টাকায় বিক্রি হলেও মহল্লার কাঁচাবাজারগুলোতে বিক্রি হচ্ছে ৭০-৮০ টাকা কেজি দরে।

সেগুনবাগিচা কাঁচাবাজারে বাজার করতে আসা ক্রেতা আল-আমিন জানান, শীতের অনেক সবজিই পাওয়া যাচ্ছে, কিন্তু এখনো সেভাবে দাম কমেনি।

তবে সরবরাহ বেড়ে যাওয়ায় কমেছে ফুলকপি ও বাঁধাকপির দাম। বাজারভেদে ফুলকপি ২৫-৪০ টাকা এবং বাঁধাকপি ২৫-৩০ টাকা পিস বিক্রি হতে দেখা গেছে। এ ছাড়া বেগুন প্রতি কেজি ৩৫-৫০ টাকা, মুলা প্রতি কেজি ৩০-৪০ টাকা, কাঁচকলা প্রতি হালি ২০-২৫ টাকা, লাউ আকারভেদে প্রতি পিস ৩৫-৫০ টাকা, ঝিঙা ৪০-৫০ টাকা কেজিতে বিক্রি হতে দেখা গেছে।

শীতের সবজির সরবরাহ পরিস্থিতি জানতে চাইলে পাইকারি বিক্রেতারা জানায়, যেসব সবজির সরবরাহ বেড়েছে সেগুলোর দাম কমতে শুরু করেছে। যেগুলো একেবারে নতুন আসছে সেগুলোর দাম চড়া। কারণ এসব সবজির সরবরাহ কম। তবে সপ্তাহখানেকের মধ্যে সব ধরনের সবজির দাম আরো কমে আসবে বলে জানায় তারা।

কারওয়ান বাজারের সবজির আড়তদার কামাল হোসেন জানান, শিম, কপির দাম অনেক কমেছে। আরো কমবে। কারণ ফলন ভালো হয়েছে। সরবরাহও বাড়ছে। নতুন যেগুলো আসছে সেগুলোও যখন বেশি আসবে তখন দাম পড়বে। সপ্তাহ-দশ দিনের মধ্যে শীতের সবজির দাম আরো কমবে।

বাজারে স্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছে পেঁয়াজ ও মরিচের দাম। প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৪০-৪৫ টাকা এবং আমদানি করা পেঁয়াজ ৩০-৩৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হতে দেখা গেছে। প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ৪০-৮০ টাকা দরে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2019 payra24.com
Design & Developed BY payra24.com